আমাদের নিউজ পোর্টাল ভিজিট করুন ...

লাকসামে লাইসেন্সবিহীন মোটর সাইকেলে সয়লাব

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট: লাকসামে লাইসেন্সবিহীন মোটর সাইকেল সয়লাব হয়ে পড়েছে আর এসব মোটর সাইকেলে দুর্ঘটনায় কবলে পড়ে অনেকে আহত নিহত হচ্ছে সরে জমিনে দেখা যায়, ইদানিং  ভারত চীনের তৈরী  নানা ধরণের মোটর সাইকেলের দাপটে রাস্তা চলাই কঠিন হয়ে পড়েছে


সব শ্রেণীর মানুষ মোটর সাইকেল চালক থাকলেও উঠতি বয়সের চালকদের দৌরাত্বে জনজীবন অতিষ্ঠ এসব উঠতি বয়সের চালকরা রাস্তা ঘাটে দ্রুত বেগে মোটর সাইকেল চালিয়ে অহরহ ঘটাচ্ছে দুর্ঘটনা

এসব মোটর সাইকেলের নেই লাইসেন্স আর অধিকাংশ চালক প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত নয়। উঠতি বয়সের এসব মোটর সাইকেল চালকরা  নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে ইচ্ছা মত অতি দ্রুত বেগে সড়কে মোটর সাইকেল চালাচ্ছেন। ফলে রাস্তাঘাটে অহরহ দুঘর্টনায় কাউকে না কাউকে জীবন দিতে হচ্ছে।

আবার কেউ আহত হয়ে সারা জীবন দুর্ভোগ পোহাত হ্েচ্ছ। অন টেস্ট লিখে বছরের পর বছর রাস্তায় মোটর সাইকেল চালাচ্ছে চালকরা। এতে একদিকে সরকার হারাচ্ছে রাজস্ব অপর দিকে নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে দিন দিন রাস্তায় নামছে নতুন নতুন মোটর সাইকেল।

ফলে লাকসামে অপরাধ প্রবণতা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। মোটর সাইকেলের সাথে পাল্লা দিয়ে এখানে আরো বাড়ছে সিএনজি অটোরিক্সাসহ অন্যান্য যানবাহন। ওই সব যানবাহনের অধিকাংশের নেই রুট পারমিট এবং চালকের নেই ড্রাইভিং লাইসেন্স।

সিএনজি অটোরিক্সা চালকদের মধ্যে স্বল্প বয়সী এবং শিশুরা পর্যন্ত গাড়ী চালাতে দেখা যায়।

লাকসামের পাশ্ববর্তী চৌদ্দগ্রাম উপজেলা ভারতীয় সীমান্ত এলাকা হওয়ায় চোরাই পথে এখানে ভারতীয় অনেক মোটর সাইকেল অহরহ আসছে।

চোরাই পথে আসায় এসব মোটর সাইকেলের দাম কিছু কম হওয়ায় উঠতি বয়সের ছেলেরা এসব মোটর সাইকেল কেনার দিকে ঝুঁকে পড়ছে।

অভিযোগ রয়েছে, একটি সংঘবদ্ধ চোরাই দলের সক্রিয় সদস্য নিয়মিত ভারত থেকে চোরাই পথে মোটর সাইকেল এনে দেশে বিক্রি করছে আবার এসব চোরাই দলের সদস্যরা এদেশের মোটর সাইকেল চুরি করে নিয়ে বর্ডার পার করে দিয়ে ভারতে নিয়ে বিক্রি করে দিচ্ছে