আমাদের নিউজ পোর্টাল ভিজিট করুন ...

লাকসামের মৃৎশিল্পীরা এখন মানবেতর জীবনযাপন করছেন

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট: লাকসামের ঐতিহ্যবাহী মৃৎশিল্প আজ বিলুপ্তির পথে ঐতিহ্যবাহী এই শিল্পটির দুরবস্থার কারণে মৃৎশিল্পের সঙ্গে জড়িতরা এখন মানবেতর জীবনযাপন করছেন বর্তমানে আধুনিক অ্যালুমিনিয়াম, মেলামাইন, শিল্প প্লাস্টিক শিল্পের ব্যাপক প্রসার লাভ করায় এবং প্রয়োজনীয় মূলধন সঙ্কট, ব্যাংক ঋণ পেতে সমস্যা সরকারি সহযোগিতার অভাবে মৃৎশিল্প বিলুপ্ত হতে চলেছে

লাকসামে মৃৎশিল্পের ব্যাপক প্রসার রয়েছে। পৌরসভার ধামৌছা গ্রাম বাজারে শেয়ার পদ্ধতিতে শিল্পের ব্যবসা চলে। শতাধিত কুমার পরিবার শিল্পের সঙ্গে জড়িত। তারা হাঁড়ি, পাতিল, কড়াই, ঢাকনা, বাসন, কলসি, মোটকা, তাগার, পিঠা তৈরির ছাঁচসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় গৃহস্থালি জিনিসপত্র ছোট ছেলেমেয়েদের নজরকাড়া খেলার সামগ্রী তৈরি করে হাটবাজারে বিক্রির মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহ করে


বৈশাখী মেলায় এই মৃৎশিল্পের কদর এখনও বিরাজমান। পুরুষের পাশাপাশি কুমার পরিবারের মহিলারা এই শিল্পের কাজ করে থাকেন। এককালে ঐতিহ্যবাহী ডাকাতিয়া নদীপথে বড় বড় নৌকায় করে কুমারেরা মৃৎশিল্পের সামগ্রী বিভিন্ন স্থানে নিয়ে বিক্রি করত। তখন এসব সামগ্রীর চাহিদাও ছিল। তাদের ব্যবসাও হতো

কিন্তু বর্তমানে আধুনিক অন্য সামগ্রীর ব্যাপকতায় কালের পরিবর্তন ঘটে। বর্তমানে আধুনিক শিল্পের পণ্যসামগ্রীর মূল্য কম হওয়ায় কুমারদের নিজস্ব কারুকার্যখচিত মৃৎশিল্প বাজারে টিকে থাকতে পারছে না। ফলে মৃৎশিল্প্প বছর বছর বিলুপ্ত হওয়ায় বর্তমানে মৃৎশিল্পের সঙ্গে জড়িত পরিবারগুলো অর্থনৈতিক দৈন্যের কারণে মানবেতর জীবনযাপন করছে। মৃৎশিল্পের দুরবস্থার কারণে পৈতৃক পেশা ছেড়ে অন্য পেশায় ঝুঁকে পড়েছে অনেকে


হতাশাগ্রস্ত কুমার পরিবারের লোকজন আলাপকালে জানান, মূলধন সঙ্কট সহজ শর্তে ব্যাংকগুলোর ঋণ না দেয়া, উত্পাদন খরচ বৃদ্ধি, সরকারিভাবে সহযোগিতার অভাব এবং প্লাস্টিক পণ্যসামগ্রীর প্রসার ঘটায় আজ মৃৎশিল্প বিলুপ্ত হতে চলছে