আমাদের নিউজ পোর্টাল ভিজিট করুন ...

ভারী বর্ষণে নাঙ্গলকোটের ডাকাতিয়া নদীর বিভিন্ন স্থানে ভাঙ্গন:বিলীন হচ্ছে রাস্তাঘাট ও ঘরবাড়ি

বিশেষ প্রতিবেদন: নাঙ্গলকোটে ভারী বর্ষণ এবং জোয়ারের পানির তোড়ে বিভিন্ন স্থানে ব্যাপক ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। ভাঙ্গনের ফলে রাস্তাঘাট ও বাড়িঘরের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। গত কয়েক দিনের প্রবল বর্ষণ ও জোয়ারের পানিতে ভেসে যায় নাঙ্গলকোটের নিন্মাঞ্চলের বিভিন্ন এলাকা। পানির তোড়ে ভেঙ্গে বিলিন হচ্ছে ডাকাতিয়া নদীর তীরবর্তী এলাকাসহ হাওর অঞ্চল রাস্তাঘাট ও ঘরবাড়ি। বিশেষ করে উপজেলার ডাকাতিয়া নদীর তীরবর্তী নিন্মাঞ্চল বাঙ্গড্ডা, রায়কোট, মৌকরা, সাতবাড়িয়া, বক্সগঞ্জ, ঢালুয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে ভাঙ্গনের পরিমাণ সবচেয়ে বেশি।


বিভিন্ন স্থানে ভাঙ্গন সৃষ্টি হওয়ায় এলাকাবাসীকে যাতায়াতে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। উপজেলার বক্সগঞ্জ-সাতবাড়িয়া - গুণবতী সড়কের অষ্টগ্রাম সাতবাড়িয়া এবং খাটোরার মধ্যবর্তী স্থানের ডাকাতিয়া নদীর তীরের রান্তাটি ব্যাপক ভাবে ভেঙ্গে বিলীন হয়ে যাচ্ছে। উপজেলার দক্ষিনাঞ্চলের জনসাধারণের একমাত্র সড়কটি ভেঙ্গে বিলীন হওয়ায় ঔ অঞ্চলের মানুষকে যাতায়াতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। বন্ধ হয়ে পড়েছে ওই সড়ক দিয়ে চলাচলকৃত বিভিন্ন রুটের যানবাহন। স্থানীয় ভাবে সড়কটির ভাঙ্গন রোধ করার চেষ্টা চালিয়ে ব্যার্থ হতে হচ্ছে।

বক্সগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম রসুল ও সাতবাড়ীয়া ইউপি চেয়ারম্যান জালাল উদ্দিন দুলাল বলেন, তাদের দুটি ইউনিয়নসহ ওই অঞ্চলের হাজার হাজার মানুষ বক্সগঞ্জ- গুণবতী সড়ক দিয়ে ঢাকা- চট্রগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করে বিধায় এটি একটি গুরুত্বপুর্ণ সড়ক। সড়কটি ভেঙ্গে বিলীন হওয়ায় মানুষের যাতায়াতে চরম দুভোগ পোহাতে হচ্ছে। তারা জরুরি ভিত্তিতে ভাঙ্গনরোধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানান।

তাছাড়া, নাঙ্গলকোট-শ্রীফলিয়া-বাঙ্গড্ডা সড়কের কাজী জোড়পুকুরিয়া এবং বাঙ্গড্ডা দিঘীর পাড়, বক্সগঞ্জ-হাসানপুর সড়কের মলংচর নামক স্থান,নাঙ্গলকোট- ঢালুয়া সড়কের চান্দাইশ, বদরপুর,ওমরগঞ্জ-বাইয়ারা সড়কের বাইয়ারা গ্রামের মধ্যবর্তী স্থান, নান্দেশ্বর-হাসানপুর সড়কের বিঞ্চপুর পশ্চিম পাড়া, বক্সগঞ্জ-আলীয়ারা সড়কের মদনপুর থেকে আলীয়ারা পর্যন্ত সড়ক, উরুকচাইল-মানিকমুড়া-ভোলাইন বাজার সড়কের চাটিতলা উত্তরপাড়া সড়ক, চাটিতলা উচ্চবিদ্যালয় এবং প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন রাস্তা সহ বিভিন্ন স্থানে নিকটবর্তী খাল-বিল ও পুকুরের পাশ্ববর্তী সড়কগুলো ভেঙ্গে বিলীন হয়ে যাচ্ছে। ফলে উপজেলাবাসীকে বিভিন্ন স্থানে যাতায়াতে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। ভাঙ্গনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।