আমাদের নিউজ পোর্টাল ভিজিট করুন ...

উৎকন্ঠিত অভিবাকরা! লাকসামে মোবাইল ডাউনলোডের নামে অশ্লীলতা !

বিশেষ প্রতিবেদন: লাকসাম উপজেলার বিভিন্ন মার্কেট বাণিজ্যিক কমপ্লেক্সে গড়ে উঠা মোবাইল ডাউন লোডের দোকানে মোবাইল ফোনে অশ্লীল নগ্ন ছবি লোডের জমজমাট ব্যবসা চলছে এতে করে স্কুল কলেজের ছেলে মেয়েরা সব দোকানে ভিড় জমাচ্ছে

জানা যায় লাকসাম পৌরসভা এবং লাকসামের বিভিন্ন হাট বাজারে হাজারো গান লোডের দোকান গড়ে উঠেছে, এই সব দোকানে কম্পিউটারে রক্ষিত বিভিন্ন নগ্ন ছবি সহ অশ্লীল ছবি ডাউন লোড করে অবৈধ ভাবে অবাধে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী ।..


এসব দোকানে প্রতিনিয়ত স্কুল কলেজের শিক্ষার্থী সহ এক শ্রেনীর যুবকরা সকাল সন্ধ্যা তাদের পছন্দনীয় কু রুচিপূর্ণ ছবি লোড নিতে ভিড় জমায়। মাত্র ৩০ থেকে ৫০ টাকা দিয়ে পাওয়া যায় এসব অশ্লীল নগ্ন ছবি।

দিকে শিক্ষার্থীরা এসব অশ্লীলতা নগ্ন ছবি মোবাইল সেটে ধারন করে লেখা পড়ার বিঘ্ন সৃষ্টি নানা ধরনের অপরাধ কর্মকাণ্ডে জরিয়ে পড়ছে। অনেক ক্ষেত্রে তারা নিজেরাও মোবাইলে অশ্লীল চিত্র ধারনে উৎসাহিত হয়। আপর দিকে স্থানীয় প্রশাসনের এসব মোবাইল লোডের দোকানে কোন নজর দারি না থাকায় তারা নির্বিঘ্নে চালিয়ে যাচ্ছে অবৈধ ব্যবসা। এতে এলাকার স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীর অভিবাবকরা উৎকন্ঠিত। কারন ধংসের দিকে যাচ্ছে তাদের কোমল মতি সন্তানেরা

ধরনের অবৈধ ব্যবসা চলতে থাকলে যুব সমাজ আরো ধংসের দিকে যাবে বলে মনে করেন অভিবাবকরা। সাম্প্রতিক সময়ে লাকসামে নারী নির্যাতন উত্ত্যক্তকরণের মাত্রা  বেড়েছে আশংকাজনক হারে। অনেক ক্ষেত্রে বখাটে কর্তৃক আত্মহত্যাসহ অভিভাবকদের ওপর হামলা হত্যার ঘটনাও আছে। এক্ষেত্রে সেলফোনের অবাধ ব্যবহারসহ অশ্লীল ছবির অনুপ্রবেশ দায়ী সর্বাংশে

এভাবে দেশীয় সংস্কৃতি, পারিবারিক ধর্মীয় সংস্কার সর্বোপরি মূল্যবোধ মানবিকতা হারিয়ে যাচ্ছে। অভিবাকরা বলেন সব অসাধু ব্যবসায়ীদেরকে ভ্রামমাণ আদালতের মাধ্যমে জরিমানা সহ শাস্তির ব্যবস্থা করে এই সকল অবৈধ ব্যবসা বন্ধ করা যাবে

মোবাইলফোনে অশ্লীল নগ্ন ছবি প্রতিরোধে মোবাইল ফোন-অপরাধ দমনে আইনী ব্যবস্থা জরুরী। তা না হলে দেশের তরুণ প্রজন্মকে ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করা যাবে না। সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বিসয়টির দিকে নজর দিবেন এই আমাদের প্রত্যাশা

প্রতিবেদকঃ সামিউর রাহমান