আমাদের নিউজ পোর্টাল ভিজিট করুন ...

লাকসামে সড়ক দুর্ঘটনায় সরকারি কর্মচারি নিহত

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট: [সোমবার, ১৪ মে ০১২] লাকসাম পৌরসভার রাজঘাটে আজ সোমবার দুপুরে সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষে এক সরকারি কর্মচারী নিহত হয়েছে।
পুলিশ স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রাজঘাট সিএনজি ষ্ট্যান্ডের কয়েক গজ আগে ফাতেমা ভবনের সামনে ফুটপাতে থাকা একটি সিএনজি অটোরিক্সা (কুমিল্লা--১১-৩৭৫০) হঠাৎ রাস্তায় এসে পড়লে আউশপাড়া থেকে দ্রুতগতিতে আসা সিএনজি অটোরিক্সাটি (কুমিল্লা--১১-১২৮৯) মুখোমুখি সংঘর্ষে উল্টে যায়। সময় সিএনজির যাত্রী কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ঢাকা রেষ্ট হাউজের কর্মচারী আবদুল আলীম (৫৪) ঘটনাস্থলে নিহত হয়। শিশুসহ অপর যাত্রী আহত হয়।..
নিহত আলীম মেয়ের বিয়ের মিষ্টি কেনার জন্য লাকসাম বাজারে আসছিল। আলীম উপজেলার মুদাফরগঞ্জ ইউনিয়নের মৃত আবদুল লতিফ মাঝির ছেলে। তার স্ত্রী, মেয়ে ছেলে রয়েছে।
            লাকসাম থানার এসআই শাহজাহান নিহতের লাশ সিএনজিসহ ড্রাইভার অশ্বত্থতলা গ্রামের আবদুর রশিদের নুর মোহাম্মদকে (২৭) আটক করে থানায় নিয়ে আসলেও অভিযুক্ত অপর সিএনজি ড্রাইভার ছনগাঁ গ্রামের মহিউদ্দিন (১৭) সিএনজিসহ পালিয়েছে। ব্যাপারে নিহতের ছেলে সিএনজি ড্রাইভার জিলানী বাদী হয়ে লাকসাম থানায় মামলা দায়ের করেন। লাশ ময়না তদন্তের জন্য পুলিশ কুমিল্লা মর্গে পাঠিয়েছে।
জানা গেছে, রুটে চলাচলকারী অধিকাংশ সিএনজি অটোরিক্সা ড্রাইভারদের ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই। ড্রাইভারদের বেশির ভাগই অপ্রাপ্ত বয়সী কিশোর।
            উল্লেখ্য, রাজঘাটে বৈধ সিএনজি ষ্ট্যান্ড না থাকায় এখান থেকে আউশপাড়া কামড্ডা রুটের অর্ধশতাধিক সিএনজি অটোরিক্সা যত্রতত্রে রেখে ফুটপাত দখলসহ রাস্তাটি সংকুচিত হয়ে যাওয়ায় পাশাপাশি দুটি রিক্সাও চলাচল করতে পারে না। রাস্তায় ট্রাক বা ট্রাক্টর প্রবেশ করলে একটি গলিপথে সিএনজিগুলো রেখে সাইড দেয়া হয়। এতে সৃষ্টি হয় দীর্ঘ যানজট। অন্যদিকে, এখানে প্রায়ই ঘটে দুর্ঘটনা। তাছাড়া, রাজঘাটের দোকানী পথচারীদের সাথে প্রায়ই সিএনজি ড্রাইভারদের বাগ-বিতন্ডা, ঝগড়া এমনকি তা মারামারিতে রূপ নেয়। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি অবিলম্বে সিএনজি ষ্ট্যান্ডটি অন্যত্রে সরিয়ে নেয়ার দাবি জানিয়েছে ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী পথচারীরা।