আমাদের নিউজ পোর্টাল ভিজিট করুন ...

বৃহত্তর লাকসামজুড়ে প্রশান্তির বারতা নিয়ে নামল বৃষ্টি

আবু পলাশঃ [শুক্রবার, ০৬ এপ্রিল ০১২] চারদিকে প্রচন্ড গরম। বৃহত্তর লাকসাম (লাকসাম, মনোহরগঞ্জ, নাঙ্গলকোট, সদর দক্ষিন) জুড়ে এতদিন রৌদ্রের প্রখরতা,..
কিষাণীর ঘরের মোড়লের ( বাংলার সাধক চাষা) সৃষ্টিকর্তার নিকট জল প্রার্থনা, সোনার মাটির কঠোর ভাব ঠিক তখনই বৃহত্তর লাকসামকে শীতল চাদরে জড়িয়ে প্রশান্তির বারতা নিয়ে নেমে আসে আকাঙ্খিত সেই বৃষ্টি।
শুক্রবার সকালে বৃহত্তর  লাকসাম (লাকসাম,মনোহরগঞ্জ,নাঙ্গলকোট,সদর দক্ষিন) জুড়ে বয়ে যায় কালবেশাখী ঝড়। সকাল সাড়ে ৮টার পর থেকেই বইতে শুরু করে প্রচণ্ড ঝড়ো হাওয়া। কিছুক্ষণের মধ্যেই তার সঙ্গে শুরু হয় বৃষ্টি।
১০টার দিকে ঝড়ো হাওয়া ও বৃষ্টি একটু থামে । ১০ টা ৩৮ মিনিটে বৃষ্টি আবার শুরু হয়ে চলে অনেক ক্ষণ। ১২টার দিকে বৃষ্টি থামে, লাকসামের অনেক এলাকায় শিলা বৃষ্টি হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এখনও আকাশ মেঘাচ্ছন্ন রয়েছে। একিত শুক্রবার ছুটির দিন তার পর আবার বহুদিন পর বৃষ্টি হওয়াতে সবাই বেশ খুশি। লাকসামে অনেককে খুশিতে বৃষ্টিতে ভিজতে দেখা গেছে। বৃষ্টি পর রাস্তায় তেমন যানবাহন চলাচল করতে দেখা যাচ্ছেনা। 
  
এ বৃষ্টিতে কৃষি জমিতে কল্পনাহীনভাবে উপকৃত হয়েছে। লাকসামে লোডশেডিং আর পানির সংকটের কারণে কৃষি জমি চাষে ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা ছিল। এছাড়াও কৃষি জমিতে ধান ক্ষেত্রে জমিগুলো পানির অভাবে হলুদে হয়ে গেছে। পানি পাওয়াতে জমিতে পুনরায় সবুজ রঙে রূপ ধারণ করেছে। ফলে কৃষকরা ভাল ফসল ঘরে তুলতে পারবেন বলে আশঙ্কা করছেন। তবে কাল বৈশাখী ঝড়ে কোন ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।

কুমিল্লা আবহাওয়া অফিস আবহাওয়ার পূর্বাভাসে জানিয়েছে , পর পর তিন দিন এমন ঝড়ো হাওয়া ও বৃষ্টিপাত হতে পারে 

 ছবিঃ মাহমুদ হাসান
 সম্পাদনা : সোনিয়া সাহা , আউটপুট এডিটর


বিজ্ঞাপন মুক্ত এ ব্লগের প্রতিটি খবরে রয়েছে এক ঝাঁক মেধাবী তরুণ তরুণীর অক্লান্ত পরিশ্রম ও সর্বোচ্চ প্রযুক্তির ব্যবহার। তাই আমাদের খবর আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করে আমাদেরকে উৎসাহিত করুন।