আমাদের নিউজ পোর্টাল ভিজিট করুন ...

লাকসামে রেলওয়ের কোটি টাকার জমি দখল


এমএসআই জসিম: [শনিবার, ১৭ মার্চ ০১২] লাকসাম রেলওয়ে জংশনসহ বিভিন্ন স্থানে রেলওয়ের কোটি কোটি টাকার জমি দখল হয়ে গেছে
জানা গেছে, লাকসাম জংশন এলাকা, দৌলতগঞ্জ বাজারের রেলগেট সংলগ্ন রেললাইনের দু্পাশ, নোয়াখালী রেলপথের দৌলতগঞ্জ রেলস্টেশন, খিলা রেলস্টেশন, নাথেরপেটুয়া রেলস্টেশন, বিপুলাসার রেলস্টেশনসহ বিভিন্ন স্থানে রেলওয়ের জমিতে দোকানপাট নির্মাণ করে ব্যবসা-বাণিজ্য চালিয়ে যাচ্ছে দখলদাররা এবং নামে-বেনামে লিজ নিয়ে স্ট্যাম্পের মাধ্যমে বিক্রি হাতবদল করে মোটা অংকের টাকার মালিক বনে গেছে..
এছাড়া রেলওয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য নির্মিত শতাধিক কোয়ার্টার খালি অবস্থায় পড়ে থাকার সুযোগে এগুলোর অধিকাংশ দরজা-জানালা, ছাউনির টিন দেয়ালের ইট লুট করে একশ্রেণীর লোকজন নিয়ে যাচ্ছে এক্ষেত্রে রেলওয়েতে কর্মরত কানুনগোরা বিপুল অংকের টাকার মালিক হলেও সরকার রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে
রেলওয়ে সূত্রে জানা যায়, ঐতিহ্যবাহী লাকসাম রেলওয়ে জংশন বর্তমানে লাকসাম রিমডেলিং জংশন ৩শএকর জমিতে অবস্থিত জংশন এলাকাসহ লাকসাম-দৌলতগঞ্জ বাজারের রেলগেট সংলগ্ন রেললাইনের দুপাশ, দৌলতগঞ্জ রেলস্টেশন, খিলা রেলস্টেশন, নাথেরপেটুয়া রেলস্টেশন, বিপুলাসার রেলস্টেশনসহ বিভিন্ন স্থানে রেলওয়ের জমিতে দোকানপাট নির্মাণ করে ব্যবসা-বাণিজ্য চালিয়ে যাচ্ছে দখলদাররা
লাকসাম-চাঁদপুর শাখা লাইন, লাকসাম-নোয়াখালী শাখা লাইনের সহস্রাধিক কোয়ার্টারের মধ্যে বর্তমানে শতাধিক কোয়ার্টারে বসবাসরত রেল কর্মকর্তা-কর্মচারীরা গোল্ডেন হ্যান্ডসেক, চাকরি থেকে অবসর এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অন্যত্র বদলি হওয়ায় কোয়ার্টারগুলো খালি অবস্থায় পড়ে রয়েছে রেল কর্মচারীদের সহায়তায় খালি বাসভবনে বিদ্যুত্ সংযোগ দিয়ে অবৈধভাবে লোকজন বসবাস করছে জংশনের রেল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য নির্মিত লোকো কলোনি, বাজার কলোনি, জিআরপি কলোনি, কলাবাগান কলোনি, নিউ কলোনি, ইঞ্জিনিয়ারিং কলোনি ট্রাফিক কলোনির ৪৭৮টি কোয়ার্টারের মধ্যে বর্তমানে ১১৯টি, নোয়াখালী লাইনের ১৪৪টির মধ্যে ২১টি লাকসাম-চাঁদপুর শাখা লাইনের শতাধিক কোয়ার্টার খালি অবস্থায় পড়ে রয়েছে রেলওয়ের সঙ্কোচন নীতি, গোল্ডেন হ্যান্ডসেক, অবসর গ্রহণ অন্যান্য কারণে দিন দিন কোয়ার্টারগুলো খালি হচ্ছে খালি কোয়ার্টারগুলো দখল হয়ে যাওয়ায় বাংলাদেশ রেলওয়ে লাখ লাখ টাকার রাজস্ব আয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছে
বর্তমানে রেলওয়ের কানুনগো আবদুল হালিম উেকাচের বিনিময়ে ভূমি বেদখলে লোকজনকে সহযোগিতা করে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে এভাবে বর্তমান কানুনগো আবদুল হালিম মোটা অংকের টাকার মালিক হচ্ছেন এবং তার আগে কর্মরত থাকা এক কানুনগো (বর্তমানে অবসরে) রেলওয়ের ভূমির টাকায় কোটিপতি হয়েছেন রেলওয়ে কর্মচারীরা রেলওয়ের ভূমির মাধ্যমে মোটা অংকের টাকার মালিক হলেও ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কোনো নজর নেই এমনকি পর্যন্ত কোনো ব্যবস্থাও নেয়া হয়নি
ব্যাপারে লাকসাম রেলওয়ের উপ-সহকারী প্রকৌশলী (পূর্ত) জানান, বিভাগীয় ইঞ্জিনিয়ারকে লেখালেখি করেছি পাহারা দেয়ার মতো আমাদের লোকবল নেই


 undefined