আমাদের নিউজ পোর্টাল ভিজিট করুন ...

প্রসঙ্গঃ শিক্ষকের ধর্ম নিয়ে কটূক্তি

দেশে একের পর এক ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটাক্ষ ও অবমাননার ঘটনা বেড়েই চলেছে। ভাবতে অবাক লাগে যখন শুনি এ কাজটি কোন এক শিক্ষক করেছে। গতবছর দেশে এ ধরনের বেশ কয়েকটি ঘটনা ঘটেছে। তার মধ্যে উল্লেখ যোগ্য খুলনার পাইকগাছার পাঠশালার শিক্ষক তারকচন্দ্র মণ্ডল ও ধানমন্ডি সরকারি বালক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মদন মোহন দাস।তারা উভয়ই শ্রেণী কক্ষে ছাত্রদের পাঠ দান করার সময় ইসলাম নিয়ে কটূক্তি করেছেন।..
আজ বলতে আমার খুব কষ্ট হচ্ছে এমনি একটি ঘটনা ঘটেছে আমার লাকসামে আমারি স্কুল লাকসাম পাইলটে।

সব দিক থেকে লাকসাম পাইলট স্কুল দক্ষিণ কুমিল্লার মধ্যে সেরা স্কুল। এ স্কুল থেকে যুগে যুগে আনেক মেধাবী ছাত্র জ্ঞান আহরন করে দেশের নামকরা সকল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উচ্চতর ডিগ্রী নিয়ে আজ দেশে বিদেশে গুরত্ব পূর্ণ পদে থেকে লাকসাম সহ সারা দেশের উন্নয়নে নিয়োজিত আছে। ডাক্তার, ইঙ্গিনিয়ার, রাজনীতিবিদ, শিল্পপতি, লেখক, সংবাদিক অনেক গুনি জ্ঞানী এ স্কুলের ছাত্র ছিলেন। আর সেই স্কুলেরই একজন শিক্ষক কৃষ্ণ চন্দ্র সরকার ইসলাম ও হিন্দু ধর্ম নিয়ে এমন ধরনের কটূক্তি করেছে এ কথা আমি প্রথমে বিশ্বাস করতে পারিনি। কারন আমি লাকসাম পাইলট স্কুলের ছাত্র ছিলাম, সে হিসেবে তিনি আমারও শিক্ষক। অনেক কষ্ট হলেও আমাকে বিশ্বাস করতে হোল। তিনি শ্রেণী কক্ষে কোমলমতি ছাত্রদেরকে ইসলাম ও তার নিজ ধর্ম নিয়ে যে বক্তব্য দিয়েছেন তা সকলের অনুভূতিতে আঘাত হানার মত। শিক্ষকের কাছ থেকে কখন এ ধরনের বক্তব্য আশা করা যায়না। শিক্ষকের বক্তব্য আমাকে যেমন অবাক করেছে তেমনি ছাত্রদের ভূমিকাও আমাকে অবাক করেছে। ছাত্রদের নিয়ম তান্ত্রিক আন্দলন সত্যি প্রশংসনীয়। তারা বিষয়টি প্রথমে স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ শাহজাহান মোল্লার কাছে ওই শিক্ষকের বিচার চেয়ে দরখাস্থ পেশ করে। প্রধান শিক্ষক দ্রুত তেমন কোন সন্তোষ জনক পদক্ষেপ না নেওয়ায় পরদিন স্কুলে ধর্মঘট করে। ব্যাপারটি জানাজানি হলে লাকসামের সর্বস্তরের মানুষ ক্ষোভ প্রকাশ করে।

আমি এখন লাকসাম পাইলট স্কুলের ছাত্র নই। তাই আমি ওই দিনের ছাত্র আন্দলনে থাকতে পারিনি। আমি কৃষ্ণ চন্দ্র সরকারের বক্তবের তীব্র ক্ষোভ এই লেখার মাধ্যমে প্রকাশ করছি। আপনার নিজস্ব ধ্যান ধারনা আপনার মাঝেই সীমাবধ্য না রেখে কেন জ্ঞান আহরন করতে আশা কোমলমতি ছাত্রদেরকে বলতে গেলেন। আপনি ইসলাম ও হিন্দু ধর্মের কোটি কোটি মানুষের অনুভূতিতে আঘাত হেনেছেন। আপনার কারনে সারা দেশে লাকসাম পাইলট স্কুল ও লাকসামের দুর্নাম হয়েছে। কদিন আগে যেমন ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে পাঁচটি ফেসবুক পেজ ও একটি ওয়েবসাইট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। একই অভিযোগে আমি কৃষ্ণ চন্দ্র সরকারের কঠোর শাস্তি দাবি করছি। অনুরোধ করবো আর কোন শিক্ষক ইসলাম সহ অন্য কোন ধর্ম নিয়ে কটূক্তি করবেন না। এটি দেশ ও জাতির জন্য হুমকি স্বরূপ। আমি কোন সাম্প্রদায়িক উস্কানিমূলক কথা বলছি না । যার যার ধর্ম স্ব-স্ব অবস্থানে থেকে পালন করতে সাহায্য করুন। 

সম্পাদক
আমাদের লাকসাম






বিজ্ঞাপন মুক্ত এ ব্লিগের প্রতিটি খবরে রয়েছে এক ঝাঁক মেধাবী তরুণের অক্লান্ত পরিশ্রম ও সর্বোচ্চ প্রযুক্তির ব্যাবহার। তাই আমাদের খবর আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করে আমাদেরকে উৎসাহিত করুন।
undefined