আমাদের নিউজ পোর্টাল ভিজিট করুন ...

লাকসামে মোটর সাইকেল চুরি হিড়িক

বিশেষ প্রতিবেদন: [শনিবার,২৫ ফেব্রুয়ারি ০১] লাকসামে বিভিন্ন হাট বাজার দোকান পাটের সামনে থেকে রহস্যজনকভাবে চুরি হচ্ছে মোটর সাইকেলসহ অন্যান্য গাড়ীর যত্রাংশ নিয়ে নিরাপত্তাহীনতা আতঙ্কে ভুগছে লাকসামবাসী এসব ঘটনায় লাকসাম থানায় বেশ কয়েকটি সাধারণ ডায়েরী করেছেন ভূক্তভোগীরা তারপরও কোন প্রতিকার পাচ্ছেন না ..
লাকসাম বাইপাস এলাকায় বিভিন্ন হাসপাতাল ক্লিনিক, উপজেলা পরিষদ পৌরসভা ভবনসহ সরকারী বেসরকারী দপ্তরের সামনে থেকে প্রায় মোটর সাইকেল চুরি হচ্ছে ঘটনায় থানায় একাধিক ডায়েরী পুলিশের হস্তক্ষেপ কামনা করা হলেও রহস্যজনক কারণে পুলিশ বিষয়ে মুখ খুলতে রাখি নন ফলে দিন দিন চুরি ডাকাতি বৃদ্ধি পাচ্ছে
গত ১৯ ফেব্রুয়ারি রোববার বিকেলে অপসোম ফার্মা লিমিটেড ঔষধ কোম্পানীর রিপেজেনটিটিভ মোঃ নাসির উদ্দিন তার মোটর সাইকেল  (যার নং- -২৯-৭৩৬৫) রেখে বাইপাস  লাকসাম মেডিকেল সেন্টার হসপিটালের ভেতরে ডাক্তারের সাথে কথা বলতে যান ঘন্টাখানিক পর বের হয়ে দেখেন তার ব্যবহৃত ব্রিফকেইস সহ মোটর সাইকেলটি কে বা কারা চুরি করে নিয়ে গেছে হাসপাতালের দারোয়ানও বলতে পারছেন না বিষয়ে তিনি লাকসাম থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছেন এছাড়াও ২৩ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার সকালে অপসোনিন ফার্মা লিমিটেড ঔষধ কোম্পানীর লাকসাম রিপেজেনটিটিভ মোঃ মাহবুব আলম তার মোটর সাইকেল (যার নং -২৯-৭৩৬৬) লাকসাম বাইপাস জেনারেল হসপিটালের সামনে রেখে ভিতরে ডাক্তারের চেম্বারে বসে আলাপচারিতার ঘন্টা খানিক পর বের হয়ে দেখেন তার মোটর সাইকেল নেই কে বা কারা চুরি করে নিয়ে গেছে হাসপাতালের দারোয়ানও বলতে পারছেন না  
উল্লেখ্য- ২০১১ সালের শেষ দিকে চলতি বৎসরের প্রথম দিক থেকে লাকসাম উপজেলায় চুরি, ডাকাতি বৃদ্ধি পেয়েছে দুটি চুরির ঘটনায় আতংকিত হয়ে পড়েছে মোটর সাইকেল আরোহী মালিকরা এর আগে দিনে-রাতে মোটর সাইকেল চোরের দল বিভিন্নস্থান  বাসা বাড়ী থেকে প্রায় ২০টি  মোটর সাইকেল চুরি করে লাকসামে আতংক সৃষ্টি করেছিল ওই সময় লাকসাম থানা পুলিশ বেশ কয়েকজন মোটর সাইকেল চোরকে গ্রেফতার করলে চুরি বন্ধ হয়ে যায় কিন্তু ওই সংঘবদ্ধ দল পুনরায় আবারও মাঠে নেমেছেন বলে জনগণের অভিমত ফলে লাকসাম আইনশৃঙ্খলা মারাত্মকভাবে ভেঙ্গে পড়ার আশঙ্কা করছেন লাকসামবাসী