আমাদের নিউজ পোর্টাল ভিজিট করুন ...

ধ্বংসের পথে ফয়জুন্নেছা চৌধুরানীর স্মৃতি

আমাদের লাকসাম: [বুধবার,২৯ ফেব্রুয়ারি ০১] লাকসামের নবাব ফয়জুন্নেছা চৌধুরানীর স্মৃতি বিলীন হওয়ার পথে লাকসামের ডাকাতিয়া নদীর উত্তর তীরে খান বাহাদুর বাড়িতে নবাব ফয়জুন্নেছা চৌধুরানী জন্মগ্রহণ করেন নবাব ফয়জুন্নেছার জন্ম ১৮৩৪ সালে রূপজালাল নামে গ্রন্থটি বাংলা ভাষায় নারী লেখিকার প্রথম প্রকাশিত বই নারী লেখিকাদের পথপ্রদর্শকও ছিলেন নবাব ফয়জুন্নেছা সাহিত্যের ইতিহাসে এটি একটি বিরল দৃষ্টান্ত নবাব ফয়জুন্নেছার রূপজালাল কাব্যগ্রন্থ তার স্বামী গাজী চৌধুরীর নামে উত্সর্গ করেন নবাব ফয়জুন্নেছার বাবার নাম সৈয়দ আহম্মদ আলী চৌধুরী।..
তার মার নাম আরফান্নেছা চৌধুরানী ১৯০৩ সালের অক্টোবর মাসে ১৩১০ বঙ্গাব্দের ২০ আশ্বিন নবাব ফয়জুন্নেছা ইন্তেকাল করেন তার জমিদারির ১১টি কাচারির প্রতিটির পাশে বিশুদ্ধ পানির জন্য পুকুর এবং মক্তব প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপন করেন সে সময় তার তত্ত্বাবধানে নির্মিত বালিকা বিদ্যালয়টি কালের সাক্ষ্য বহন করেছে নবাববাড়ির বালিকা বিদ্যালয়টি কালক্রমে লাকসাম ফয়জুন্নেছা বদরুন্নেছা যুক্ত উচ্চ বিদ্যালয় (বিএন হাইস্কুল) রূপ নিয়েছে তত্কালীন মাদরাসা আজ লাকসাম নবাব ফয়জুন্নেছা সরকারি কলেজ হিসেবে এলাকায় আধুনিক শিক্ষার দ্বার উন্মোচন করেছে এক তথ্যে জানা যায়, গাজী চৌধুরী প্রথম বিয়ে করেন বেগম নজমুন্নেছাকে সতিন যাতনায় অতিষ্ঠ হয়ে ফয়জুন্নেছা বাকশার গ্রামে অল্প কিছুদিন থেকে পরে লাকসামের পশ্চিমগাঁওয়ে স্থায়ী বসবাস করেন শেষ বয়সে গাজী চৌধুরী চরম মনোবেদনায় কুমিল্লা শহরের মীরবাড়িতে শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন কুমিল্লা শহরে ১৮৭৩ সালে নবাব ফয়জুন্নেছা দুটি বালিকা বিদ্যালয় স্থাপন করেন শহরের পূর্ব প্রান্তে নাজুয়াদীঘির পাড়ে প্রাথমিক বালিকা বিদ্যালয় এবং অপরটি বাদুরতলার উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন রংপুরের বেগম রোকেয়ার সাত বছর আগে লাকসামের নবাব ফয়জুন্নেছা বালিকা বিদ্যালয় স্থাপন করেন এবং দুই বছর পর স্যার সৈয়দ আহম্মদ আলী ১৮৭৫ সালে প্রথম মুসলিম কলেজ অ্যাংলো ওরিয়েন্টাল কলেজ, পরে বিখ্যাত আলীগড় বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করেন তিনি ছিলেন নারীশিক্ষায় অগ্রণি ভূমিকা পালনকারী লাকসামে নবাব ফয়জুন্নেছা তার বাড়ির পাশে দশগম্বুজ মসজিদ স্থাপন করেন মসজিদের দক্ষিণে পারিবারিক কবরস্থানে নবাব ফয়জুন্নেছাকে চিরদিনের জন্য সমাহিত করা হয় কিন্তু এশিয়ার মহীয়সী নারী বাংলাদেশের গৌরব নবাব ফয়জুন্নেছার জন্ম মৃত্যু দিবস দেশে পালিত হয় না সরকারি, বেসরকারি বা পারিবারিকভাবেও নবাব ফয়জুন্নেছার জন্ম-মৃত্যু দিবস কেউ পালন করছে না নবাববাড়িটি রক্ষণাবেক্ষণ সংস্কারের অভাবে আজ ধ্বংস বিলীন হওয়ার পথে