আমাদের নিউজ পোর্টাল ভিজিট করুন ...

লাকসামকে জেলা বাসত্মবায়নের দাবি জোরালো হচ্ছে

সামছুল আলাম রাজন: [বৃহ:স্পতিবার,০৯ ফেব্রুয়ারি ২০১] লাকসামকে জেলা বাসত্মবায়নের দাবি জোরালো হচ্ছে লাকসাম জেলা বাসত্মবায়ন উদ্যোগের রূপকার প্রখ্যাত সাংবাদিক শিবিবীর আহমেদ নানামুখী কর্মসূচী দাবি বাসত্মবায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে বিজ্ঞমহল মনে করছেন।..
সেই সাথে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা ব্যাপারে আমত্মরিক হলে সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে লাকসামকে জেলা বাসত্মবায়ন খুব সহজ- মনে করেন বিজ্ঞমহল তাদের মতে- কুমিল­v সিটি কর্পোরেশন হিসেবে উন্নীত হওয়ায় লাকসামকে জেলা বাসত্মবায়নের এখনই উপযুক্ত সময় বাংলাদেশের মানচিত্রে লাকসাম একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান নওয়াব ফয়জুন্নেছা চৌধুরাণীর স্মৃতি বিজড়িত, ডাকাতিয়া বিধৌত লাকসাম নানা কারণে ঐতিহ্যবাহী একটি নগরী বৃটিশ শাসনামল থেকে লাকসাম দৌলতগঞ্জ বাজার একটি প্রসিদ্ধ বাণিজ্যিক কেন্দ্র এখানে রয়েছে প্রথম শ্রেণীর পৌরসভা, সরকারী কলেজ, আলিয়া মাদ্রাসাসহ বহু গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা ভৌগলিক অবকাঠামোগত দিক থেকে লাকসামের অবস্থানও সুবিধাজনক বৃহত্তর লাকসাম তথা লাকসাম, মনোহরগঞ্জ, নাঙ্গলকোট, সদর দক্ষিণের একাংশ এক সময় লাকসাম উপজেলার সাথে সম্পৃক্ত ছিল উলে­খিত উপজেলা সমূহের সাথে কুমিল­v বরুড়া, চৌদ্দগ্রাম এবং নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীর সমন্বয়ে লাকসাম জেলা বাসত্মাবায়নের যৌক্তিক দাবিদার স্বাধীনতা পরবর্তী ১৯৮০ সালেই সর্বপ্রথম লাকসামকে জেলা বাসত্মবায়নের দাবি উত্থাপিত হয় লাকসাম পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান প্রয়াত মোসত্মফা কামাল খান সর্বপ্রথম লাকসামকে জেলা বাসত্মবায়নের দাবি উত্থাপন করেছিলেন সেই সময় তাঁর দাবির সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেন প্রয়াত এম.পি জালাল আহমেদ, প্রয়াত অধ্যক্ষ আবুল কালাম মজুমদার, প্রয়াত আলহাজ্ব খোরশেদ আলম সুরুজ, প্রয়াত আবদুল আউয়াল, মেজর (অব:) হাবিবুর রহমান মজুমদার, প্রয়াত .বি সিদ্দিক, প্রয়াত মোসলেহ উদ্দিন, নজির আহমেদ ভুঁইয়া, আবুল হোসেন ননী, আবদুল বারী মজুমদার, জাহাঙ্গীর মাওলা চৌধুরীসহ আরো অনেকেই দাবি বাসত্মবায়নের লক্ষ্যে সভা-সমাবেশ আয়োজনের পাশাপাশি পোষ্টার ব্যানার লাগানো হয়েছিল দেয়ালে দেয়ালে বিগত৯৬ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচন পরবর্তী লাকসাম পৌরসভার নতুন ভবন উদ্বোধন করতে লাকসামে এসেছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের বর্তমান রাষ্ট্রপতি জিল­y রহমান সেই সময় লাকসামবাসীর পক্ষে মোসত্মফা কামাল খাঁন লাকসামকে জেলা ঘোষণার জোরালো দাবি জানান সেই সাথে জিল­y রহমানকে লাকসামবাসীর পক্ষ থেকে স্মারকলিপিও দেয়া হয়েছিল নিয়ে এরশাদ সরকারের আমলে সভা, সমাবেশে দাবি উত্থাপনসহ লাকসাম পৌরসভার সাবেক মেয়র মোসত্মফা কামাল খাঁন সাংবাদিক সম্মেলন করে জোরালো দাবি জানালেও দীর্ঘদিন নিস্ক্রিয়তার পর যখন বিগত চারদলীয় জোট সরকারের শেষ সময়ে লাকসামকে জেলা ঘোষণার দাবি নিয়ে খালেদা জিয়াকে লাকসাম আনার আয়োজন চলছিল তখন ক্লের্দাক্ত রাজনীতি স্থানীয় কোন্দলনের কারণে শেষ পর্যমত্ম ওই কর্মসূচী বাতিল হয় লাকসামবাসীর অপূরণীয় ক্ষতির পর জেলা বাসত্মবায়ন নিয়ে আর তেমন কোন দাবি বা আন্দোলন নেই জনপ্রতিনিধিরাও বিষয়ে অনেকটা নিরব বিভিন্ন সময়ে লাকসামের বিভিন্ন মহলে লাকসাম জেলা বাসত্মবায়ন হবে ধরনের আলোচনা থাকলেও মূলতঃ বিষয়টি সরকারের বিবেচনায় আছে কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে কবে নাগাদ লাকসাম জেলা বাসত্মবায়ন হবে এমন প্রশ্নের উত্তর লাকসামবাসী যখন খুঁজছে ঠিক তখনই লাকসামকে জেলা প্রাপ্তির অধিকার থেকে বঞ্চিত করার ষড়যন্ত্রও থেমে নেই সূত্র মতে- কুমিল­v মহানগরের খুব কাছাকাছি নতুন একটি উপজেলাকে কেন্দ্র করে জেলা বাসত্মবায়নের চেষ্টা তদ্বিরও চিঠি চালা-চালির প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে ওই জেলার সাথে লাকসামকেও অমত্মর্ভূক্ত করার চিমত্মা ভাবনা চলছে লাকসামের বিভিন্ন পর্যায়ের বিশিষ্টজনদের সাথে বিষয়ে কথা হলে তারা বিষয়টি মেনে নেবে না বলে সাফ জানিয়ে দেন বিষয়ে তারা স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের ইতিবাচক ভূমিকা প্রত্যাশা করেন অভিজ্ঞ মহলের মতে- বর্তমান সরকারের আমলেই লাকসাম জেলা ঘোষণার একটি রূপরেখা তৈরী সম্ভব কেননা ভবিষ্যতে বিএনপি ক্ষমতাসীন হলে বিষয়ে দাবি উত্থাপন করা হলে এতে প্রধান অমত্মরায় হবেন বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য সাবেক মন্ত্রী . খন্দকার মোশাররফ হোসেন কারণ দাউদকান্দিকে জেলা ঘোষণার জন্য তিনি যাবতীয় রূপরেখা তৈরী করে রেখেছেন দাবি বাসত্মবায়নে ওখান বর্তমান আওয়ামীলীগ দলীয় বর্তমান সংসদ সদস্য মেজর (অব:) সুবিদ আলী ভুঁইয়া সংসদে একাধিকবার বক্তব্যের পাশাপাশি চেষ্টা তদবির অব্যাহত রেখেছেন বর্তমান সরকারের আমলে আমলে দাউদকান্দি জেলা বাসত্মবায়ন না হলেও পরবর্তীতে বিএনপি সরকার গঠন করলে . খন্দকার মোশাররফ হোসেন সুযোগটি হাতছাড়া করতে কোনভাবেই রাজী হবেন না
লাকসামকে জেলা বঞ্চিত করার ষড়যন্ত্র লাকসামবাসী কখনো মেনে নেবে না। ইতোমধ্যে আমেরিকায় লাকসাম জেলা বাসত্মবায়ন কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির আহবায়ক লাকসামের কৃতি সমত্মান, প্রখ্যাত সাংবাদিক শিববীর আহমেদ লাকসামকে জেলা বাসত্মবায়নের যৌক্তিকতা তুলে ধরে ইতোমধ্যে রাষ্ট্রপতি জিল­y রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, স্থানীয় সরকার মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, পররাষ্ট্রমন্ত্রী . দীপু মনিসহ বিভিন্ন দফতরে স্মারকলিপি জমা দিয়েছেন। শিববীর আহমেদের নেতৃত্বে গত বছরের ১২ ফেব্রুয়ারি লাকসাম বাইপাস সড়কে বিশাল মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়। ওই কর্মসূচীতে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ স্বতঃস্ফুর্ত অংশগ্রহণ করে দাবির প্রতি একাত্মতা প্রকাশ করেন। গত সোমবার মনোহরগঞ্জে বিশাল মানববন্ধন বিশিষ্টজনদের সাথে মতবিনিময় করা য়েছে। গত রোববার বৃহত্তর লাকসামের সাংবাদিকদের সাথে মতবনিমিয় করে দাবি বাসত্মবায়ন না হওয়া পর্যমত্ম বিভিন্ন কর্মসূচী অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেন লাকসাম জেলা বাসত্মবায়ন উদ্যোগের রূপকার শিববীর আহমেদ। আর দাবির প্রতি একাত্মতা প্রকাশ করে বিভিন্ন কর্মসূচী অব্যাহত রাখার বিষয়ে বিজ্ঞমহল মত দিয়েছেন। লাকসামকে জেলা বাসত্মবায়ন না হওয়া পর্যমত্ম বিভিন্ন কর্মসূচী অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন সাংবাদিক শিববীর আহমেদ। তিনি দাবি বাসত্মবায়ন বিভিন্ন কর্মসূচী সফল করতে জনপ্রতিনিধিসহ সকল শ্রেণী-পেশার মানুষের সহযোগিতা কামনা করেছেন