আমাদের নিউজ পোর্টাল ভিজিট করুন ...

গণমিছিলে পুলিশের গুলিতে চার নেতকর্মী হত্যার প্রতিবাদে লাকসামে বিক্ষোভ মিছিল

ফরহাদ খান বাবুঃ [বুধবার,০১ ফেব্রুয়ারি ২০১] বিএনপির কেন্দ্রিয় কর্মসুচীর অংশ হিসাবে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি, বিএনপির নেতা-কর্মী হত্যা পুলিশ দিয়ে দেশের বিভিন্ন জায়গায় বিএনপির মিছিলে হামলা গণ গ্রেফতারের প্রতিবাদে সারা দেশের ন্যায় লাকসাম উপজেলা পৌরসভা বিএনপির অংগসংগঠনের যৌথ উদ্যোগে গত ৩১শে জানুয়ারী বিকালে লাকসাম দৌলতগঞ্জ রেল ষ্টেশন কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ মাঠে বিশাল সমাবেশ করেছে বিএনপি।.. বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য সাবেক সাংসদ জননেতা কর্নেল (অবঃ) এম. আনোয়ারুল আাজীম পিএসসি সাবেক সাংসদ উপজেলা বিএনপির সভাপতি জননেতা সাইফুল ইসলাম হিরু মিছিল সমাবেশে নেতৃত্ব দেয়ার কথা ছিল কিন্তু শারীরিক অসুস্থতার কারনে নেতা যোগদান করতে পারেননি বলে সংগঠন সূত্রে জানা গেছে

বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল সমাবেশে লাকসাম উপজেলা পৌরসভা বিএনপির বিভিন্ন ইউনিয়ন ওয়ার্ড থেকে বিএনপি অঙ্গসংগঠনের নেতা কর্মীরা খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে সমাবেশে জমায়েত হয়। লাকসাম উপজেলা পৌরসভা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ শাহআলম আবুল হোসেন মিলনের প্রানবন্ত উপস্থাপনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন লাকসাম উপজেলা বিএনপির যুগ্ন সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুর হোসেন, সহ-সভাপতি ইব্রাহিম খলিল, দপ্তর সম্পাদক ফজলুর রব মাসুম, পৌর বিএনপির সহ-সভাপতি আলহাজ্ব আবুল বাশার ভাষানী, আবদুল্লাহ আল মাহমুদ খসরু, সফিকুর রহমান সাবেক কমিশনার, অধ্যাপক হুমায়ুন কবীর মজুমদার, সহ-সাধারন সম্পাদক মঞ্জুরুল আলম বাচ্চু, প্রচার সম্পাদক জাকির হোসেন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ জসিম উদ্দিন, পৌর বিএনপির সাবেক সদস্য সচিব মজিব উল্লাহ (তরু), লাকসাম উপজেলা যুবদলের সভাপতি এডঃ তাজুল ইসলাম, পৌরসভা যুবদলের সভাপতি জিল্লুর রহমান ফারুক, সাধারন সম্পাদক মাহাবুবুর রহমান মানিক, উপজেলা জাসাস সভাপতি বেলাল রহমান মজুমদার, সাধারন সম্পাদক মনির আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম মজুমদার, উপজেলা সেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি মোশাররফ হোসেন, সাধারন সম্পাদক রাসেল মজুমদার, সেচ্ছাসেবক দলের নেতা সোহাগ, পৌরসভা সেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি ফারুক আহমেদ, সাধারন সম্পাদক মাহাবুবুল হক মনু, উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি মাসুদ রানা বেলাল, সাধারন সম্পাদক আমান উল্লাহ আমান, পৌর ছাত্রদলের সভাপতি ওমর ফারুক রাজু, সাধারন সম্পাদক আলী হায়দার মামুন, উপজেলা কৃষকদলের সভাপতি মনিরুজ্জামান মনু, সাধারন সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন, পৌরসভা কৃষকদলের সভাপতি আবদুল কাদের মোল্লা, সাধারন সম্পাদক আবুল কালাম, পৌরসভা জাসাস আহবায়ক মোঃ শাহ আলম, যুগ্ন আহবায়ক আবু বকর সুমন প্রমুখ। সমাবেশ শেষে বিশাল একটি মিছিল লাকসাম দৌলতগঞ্জ বাজারের গুরুত্বপুর্ণ সড়ক প্রদক্ষিন করে পুনরায় মসজিদ মাঠে গিয়ে শেষ হয়।

সমাবেশে লাকসাম পৌরসভা বিএনপির সভাপতি হুমায়ুন কবির পারভেজ সভাপতির বক্তব্যে তিনি বলেন, সারা দেশে বিএনপির শান্তিপুর্ণ মিছিলে পুলিশ পেটুয়া বাহিনী হামলা করে ৪জন নেতা-কর্মীকে নিহত করে অসংখ্য নেতা-কর্মীদেরকে আহত গ্রেফতার করে। স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্রে ধরনের নেক্কারজনক ঘটনায় জাতি হতবাক। তিনি বলেন বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীদেরকে হত্যা গ্রেফতার করে পুলিশ বাহিনীর ধরনের আচরন অতিতের সকল ইতিহাসকে হার মানিয়েছে। অবিলম্বে পুলিশ বাহিনীকে সরকার দলীয় কর্মীর ভুমিকা পালন না করে নিরপেক্ষ থাকার আহবান জানান। তিনি বলেন, সরকারই শেষ সরকার নয়। পালা-বদল অনিবার্য কারন এদেশের শান্তিপ্রিয় জনতা বিএনপির পতাকাতলে। বিএনপি জ্বালাও-পোঁড়াও মানুষ হত্যার রাজনীতিতে বিশ্বাসী নয়। অবিলম্বে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবে।
লাকসাম উপজেলা বিএনপির সাবেক সদস্য সচিব আবদুর রহমান বাদল বলেন, আওয়ামী বাকশালীরা সেই বহুল আলোচিত ২৮শে অক্টোবরের বর্বরোচিত লগী-বৈঠার তান্ডবের কথা বাংলাদেশের মানুষ কখনও ভুলে নাই এবং ভুলবে না। তারা এখন সেই পুরনো লোমহর্ষক ঘটনায় পুনরাবৃত্তি করতে চলেছে। তিনি বলেন বিএনপি নেতা-কর্মীরা যখন রজপথে নেমে সরকারের অন্যায় জোর-জুলুমের বিরুদ্ধে গনতান্ত্রিকভাবে আন্দোলন-সংগ্রাম করেছে ঠিক তখনই চাঁদপুর লক্ষিপুরে বিএনপির নেতা-কর্মীদের উপর ঝাপিয়ে পড়ে আওয়ামী হায়েনারা। তিনি বলেন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্ত্বে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন নির্দলীয়, নিরেপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন হতেই হবে। তিনি বলেন ৯০ এর স্বৈরাচাশাসক এরশাদের বিরুদ্ধে রাজপথে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল যেভাবে আন্দোলন-সংগ্রাম করে স্বৈরশাসকের পতন ঘটিয়েছে ঠিক সেভাবেই ছাত্র-জনতা অগনতান্ত্রিক আওয়ামী সরকারের পতন ঘটাবে

 undefined